02cc3

শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশন : শাড়ির সঙ্গে মানানসই ব্লাউজ কালেকশন

পারিবারিক বা প্রাতিষ্ঠানিক যেকোন অনুষ্ঠানে ড্রেস সিলেকশনে আপনার প্রথম পছন্দ কি হবে? অবশ্যই শাড়ি, তাইতো! তবে কোন শাড়ির সঙ্গে কোন ধরনের, রঙের বা ডিজাইনের ব্লাউজ ম্যাচ করবে তা নিয়ে আপনাকেও নিশ্চয়ই পড়তে হয়েছে গোলক ধাঁধায়! এই ধাঁধার সমাধানেই শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশন নিয়ে আজকের এই লেখাটি।

শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশন

শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশন হতে পারে অনেক ভাবেই। সেটা হতে পারে রং বা ফেব্রিকস দিয়ে। আবার হতে পারে মোটিফ বা নকশা দিয়েও। এছাড়া শাড়ির পাড়ের রঙ/নকশার সাথে মিলে যায় এমন ব্লাউজ দারুন কম্বিনেশন তৈরি করে।

রঙের ক্ষেত্রে দু ধরণের শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশন হতে পারে। শাড়ির রঙের সঙ্গে মিলিয়ে এবং বিপরীত রং বাছাই করে। এছাড়া শাড়ির নকশার রঙের সঙ্গে মিলিয়েও ব্লাউজ পিস সিলেক্ট করা যেতে পারে।

নকশার ক্ষেত্রে বেশ কয়েকটি বিষয়কে গুরুত্ব দেওয়া হয়। যেমন ধরুন শাড়িতে আছে ফ্লাওয়ার মোটিফ, এক্ষেত্রে আপনি ফ্লাওয়ার প্রিন্টেড ব্লাউজ সিলেক্ট করতে পারেন। বিপরীতটাও হতে পারে, প্রিন্টেড শাড়ির সঙ্গে ফ্লাওয়ার মোটিফের এমব্রয়ডারি, হাতের কাজ, জারদৌসি বা কারচুপির নকশার ব্লাউজ বেছে নিতে পারেন।

বেশ কয়েকটি শাড়ির সঙ্গে পড়া যাবে এমন ২-৩ টি ব্লাউজ সংগ্ৰহে রাখলে শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশন নিয়ে এতটা ভাবতে হয় না। এজন্য একটু চড়া রং সিলেক্ট করাই ভালো। তাতে রাখতে পারেন বিভিন্ন স্টোন, বল বা ঝালরের নকশা।

পেছনে ফিতা রাখতেও পছন্দ করেন অনেকে। ব্লাউজে ব্যবহার করতে পারেন কনস্ট্রাস্ট রঙের লেস। হাতা দিতে পারেন ফুল বা থ্রি-কোয়ার্টার। সবদিকে খেয়াল রেখে এমন ২-৩ টি ব্লাউজ বানিয়ে রাখুন যেন বেশ কয়েকটি শাড়ির সঙ্গে অনায়াসেই পড়ে ফেলা যায়।

শাড়ির ধরণ বুঝে মানানসই ব্লাউজ

শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশনে বর্তমানে চলছে মিসম্যাচ ট্রেন্ড। অর্থাৎ শাড়ি যদি খুব জমকালো হয় তবে ব্লাউজ পিস হওয়া চাই প্লেইন, ছিমছাম। আবার শাড়ি যদি হালকা ডিজাইন বা এক রঙের নরমাল-সাদাসিধে হয় তবে ব্লাউজ পিস হওয়া চাই নকশা-বৈচিত্র্যে জমকালো ধরণের। এক্ষেত্রে ডিজাইনিং, ফ্লোরাল প্রিন্টেড বা চেক প্রিন্টেড ব্লাউজ সিলেক্ট করা যেতে পারে।

জর্জেট, সিল্ক, মসলিনের মতো স্বচ্ছ শাড়ির জন্য বেছে নিতে পারেন মখমলের তৈরি ব্লাউজ। মখমল ফ্রেবিকসে বেশ গর্জিয়াস লুক পাওয়া যায়। আরো জমকালো চাইলে গলায় এমব্রয়ডারি নকশা রাখতে পারেন।

আপনি চাইলে বোতাম সামনে না দিয়ে পেছনেও দিতে পারেন। এতে ব্যবহারে আরাম পাওয়া যায়। এক্ষেত্রে পার্ল বা স্টোনের অর্নামেন্টাল বোতাম ব্যবহার করা যেতে পারে।

তাঁতের শাড়ির সঙ্গে সুতি চেক বা স্ট্রাইপের প্যাটার্ন ব্লাউজ বেছে নিতে পারেন। এছাড়া শিবুরি ডাই বা টাইডাই ফ্রেবিকসও ভালো মানাবে। তাঁতের শাড়ির ক্ষেত্রে ব্লাউজে রাউন্ড নেক বা সেমি-বোট নেক বেশ ভালো মানাবে। এক্ষেত্রে হাতা হতে পারে লম্বা বা এক-চতুর্থাংশ।

ডিজাইনারদের মতে, সংগ্ৰহে একটি কাতান শাড়ি থাকলে শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশন নিয়ে আর তেমন ভাবতে হয় না। উৎসব-অনুষ্ঠানে বেনারসি বা কাতান তো অবশ্যই সেইসঙ্গে হাফসিল্ক, পিওর সিল্ক, জামদানি, শিফন এমনকি তাঁতের শাড়িতেও কাতান ব্লাউন বেশ মানানসই।

এক রঙের বা প্লেইন পাড়ের শাড়ির সঙ্গেও এই ব্লাউজ বেশ ভালো মানিয়ে যায়। এক্ষেত্রে গলা খুব বেশি আঁটসাঁট না হয়ে একটু বড় কাটের হলে দেখতে ভালো লাগবে। গলার কাটে ভিন্নতা আনতে ওভাল, মেট্রো বা পান পাতা শেপ দিতে পারেন।

পেছনে বোতামে ও গলায় ফিতের সঙ্গে মিলিয়ে স্টোন বা পার্লের নকশাদার টারসেল ব্লাউজে আনতে পারে জমকালো ভাব।

রঙের ক্ষেত্রে শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশন

রঙের ক্ষেত্রেও শাড়ি ও ব্লাউজের বেশকিছু দারুন কম্বিনেশন দেখা যায়। এখন জেনে নেওয়া যাক কোন রঙের শাড়ির সঙ্গে কোন রঙের ব্লাউজ মানিয়ে যাবে সবচেয়ে ভালো!

লাল শাড়ি

শাড়ির সঙ্গে মানানসই ব্লাউজ কালেকশন - লাল শাড়ি
শাড়ির সঙ্গে মানানসই ব্লাউজ কালেকশন – লাল শাড়ি

গোল্ডেন রঙটা লাল শাড়ির জন্য বেস্ট শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশন এর একটি। এটি সাজগোজে এনে দেবে গর্জিয়াস লুক।

এছাড়া লাল শাড়ির সঙ্গে নীল , কালো বা কালচে ব্রাউন রঙের ব্লাউজ সহজেই মানিয়ে যায়।

হলুদ, বাদামি, ডিপ গ্ৰীন, প্যারট গ্ৰিন রঙের ব্লাউজ আপনার শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশন এ আনবে দারুন সব বৈচিত্র্য!

নীল শাড়ি

নীল রঙের শাড়ির সঙ্গে গোল্ডেন বা সিলভার কালার ব্লাউজের কম্বিনেশনটা সবচেয়ে ভালো। নীল শাড়িতে কালো ব্লাউজ সাজগোজে এনে দেবে শিথিল ভাব।

এছাড়া এক্ষেত্রে লাল, সাদা, গ্ৰে, হলুদ, বাদামি ব্লাউজও তৈরি করতে পারে চমৎকার কিছু কালার কম্বিনেশন।

স্কাই ব্লু এর ক্ষেত্রে হলকা/গাঢ় গোলাপী বা নেভি ব্লু রঙের ব্লাউজের কম্বিনেশনটা এক কথায় অসাধারণ!

হলুদ শাড়ি

হলুদ শাড়ির সঙ্গে সবুজ, গাঢ় নীল, কোরাল রেড, গোল্ডেন, গোলাপী ও মেটালিক মিন্ট রঙের ব্লাউজ বেশ মানানসই।

লেমন হলুদের ক্ষেত্রে ভালো মানাবে অরেঞ্জ বা সিকুইন্ড ব্ল্যাক রঙ। মাস্টার্ড হলুদের সঙ্গে বেছে নিতে পারেন কোবাল্ট ব্লু রঙের ব্লাউজ।

কাঁচা হলুদ শাড়িতে মেরুন রঙের ব্লাউজ আপনাকে দিতে পারে বেশ জমকালো লুক। পারিবারিক বা সাংগঠনিক যেকোনো ভারি অনুষ্ঠানে আপনি অনায়াসেই এই কম্বিনিশনটি ট্রাই করে দেখতে পারেন।

গোল্ডেন শাড়ি

গোল্ডেন শাড়ির ক্ষেত্রে যে কালার কম্বিনেশনটা প্রথমেই মাথায় আসে তা হলো মেরুন বা লাল। নিঃসন্দেহে এই কালার কনট্রাস্টটিই সবচেয়ে ভালো। তবে এছাড়াও গোল্ডেন শাড়ির সঙ্গে আরো বেশকয়েকটি রঙে কালার কনট্রাস্ট করে নেওয়া যায়।

হালকা গোল্ডেনে ডীপ গ্ৰীন এবং গাঢ় গোল্ডেনে প্যারোট গ্ৰীন দারুনভাবে মানায়।গোল্ডেন শাড়িতে নেভি ব্লু ব্লাউজ চমৎকার কালার কনট্রাস্ট দিতে পারে। সাথে যদি খানিকটা সিকোয়েন্স থাকে তাহলে তো কথাই নেই!

গোল্ডেন শাড়ির সঙ্গে সেলিব্রিটিরা যে কালার কম্বিনেশনটা সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করেন তা হলো কালো। এটি খুব সহজেই সাজে গর্জিয়াস লুক এনে দেয়।

ম্যাজেন্টা বা হট পিংক রঙেও গোল্ডেন শাড়ি দেখতে বেশ লাগে। এছাড়া অরেঞ্জ, চকলেট, পিচ বা গোল্ডেনের সাথেও গোল্ডেন শাড়ির দারুন কম্বিনেশন করা সম্ভব।

গোলাপী শাড়ি

গোলাপী শাড়ির সঙ্গে অ্যাশ, সাদা ও গোল্ডেন রঙের কালার কন্ট্রাস্টগুলোই বেস্ট।

অরেঞ্জ, মেটালিক, স্কাই ব্লু, হলুদ রঙের ব্লাউজও গোলাপী শাড়িতে এনে দিতে পারে নান্দনিক সৌন্দর্য!

শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশন এ হালকা গোলাপীর সঙ্গে নীল এবং গাঢ় গোলাপীর সঙ্গে নেভি ব্লু ও কালো রঙের কম্বিনেশনও বেশ মানানসই।

তাছাড়া কালার কম্বিনেশনে নতুনত্ব আনতে কালো, প্যারট বা ডীপ গ্ৰীন ট্রাই করে দেখতে পারেন।

সাদা শাড়ি

সাদা রঙের ক্ষেত্রে বেস্ট শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশন হলো সাদা শাড়ির সঙ্গে গোল্ডেন, ব্ল্যাক, রেড, স্কাই বা নেভি ব্লু রঙের ব্লাউজ।

এছাড়া সাদা শাড়ির সঙ্গে গোলাপী, নীল, সবুজ, বেগুনী, সাদা, মেরুনসহ যেকোন রঙের ব্লাউজই চমৎকার ভাবে মানানসই।

তবে কিছু ক্ষেত্রে সাদা শাড়িতে সাদা রঙের ব্লাউজ বেমানান মনে হতে পারে।

সিলভার শাড়ি

সিলভার শাড়ির সঙ্গে সিলভার, ব্ল্যাক বা মেরুন রঙের ব্লাউজ বেস্ট শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশনের মধ্যে অন্যতম।

এছাড়া নেভি ব্লু, লাল, গোল্ডেন রঙগুলো কালার কম্বিনেশনে নিয়ে আসতে পারে দারুন সব বৈচিত্র্য।

ক্রিম‍/বাদামী রঙের শাড়ি

বাদামী শাড়ির সঙ্গে গোল্ডেন বা গোলাপী রঙের ব্লাউজ দারুন মানিয়ে যায়।

এক্ষেত্রে মেরুন, ফুসিয়া, কালো ও নেভি ব্লু রঙের ব্লাউজ গর্জিয়াস লুক আনতে সাহায্য করে।

কমলা শাড়ি

হলুদ বা গোল্ডেন রঙের ব্লাউজ এক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো মানাবে।

অরেঞ্জ কালার শাড়িতে কালো রঙের ব্লাউজ আপনাকে সহজেই গর্জিয়াস লুক এনে দিতে পারে।

আপনি চাইলে অরেঞ্জ শাড়িতে ডীপ গ্ৰীন বা বেগুনী রঙের ব্লাউজও ট্রাই করে দেখতে পারেন। এটি আপনার শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশন এ নতুনত্ব নিয়ে আসবে।

মেরুন শাড়ি

মেরুন রঙের শাড়ির সঙ্গে ব্লাউজের বেস্ট কম্বিনেশন হলো গোল্ডেন বা সিলভার রঙে।

এক্ষেত্রে আপনি কালো রঙটাও ট্রাই করতে পারেন। কালো রঙে সাজগোজে বেশ ম্যাট-শিথিল লুক পাওয়া যাবে।

সবুজ শাড়ি

প্যারট গ্ৰিনের সঙ্গে কালো বা হালকা গোলাপী রঙের কালার কন্ট্রাস্টটা দারুন।

ডীপ গ্ৰীনের জন্য বেছে নিতে পারেন লাল,মেরুন বা কালো রঙ। সবুজের সঙ্গে লালের কম্বিনেশন সাজগোজে এনে দেবে প্রকৃতির ছোঁয়া।

নীলাভ সবুজ

নীলাভ সবুজ রঙের শাড়ির সঙ্গে সিলভার ব্লাউজের কম্বিনেশনটা সবচেয়ে ভালো।

এক্ষেত্রে নীল, হলুদ ও সবুজ ব্লাউজের কম্বিনেশনও মন্দ নয়।

মেজেন্ডা রঙের শাড়ি

মেজেন্ডা রঙের সঙ্গে বেস্ট কালার কন্ট্রাস্ট গোল্ডেন বা সিলভার রঙে।

এছাড়া লাল, হলুদ, বাদামী, গোলাপী ও অরেঞ্জ রঙও অসাধারণ কালার কম্বিনেশন তৈরি করে।

এর সঙ্গে প্যারট গ্ৰিন বা সাদা রঙটাও হয় বেশ নজরকাড়া!

বেগুনী শাড়ি

বেগুনী রঙের শাড়ির সঙ্গে লাল ও হলুদ ব্লাউজের কম্বিনেশন সবচেয়ে মানানসই।

এক্ষেত্রে প্যারট গ্ৰীন, গোল্ডেন বা অরেঞ্জ রঙের ব্লাউজও কোন অংশে কম যায় না।

বেগুনী শাড়ির সঙ্গে গোলাপী, বাদামী, সাদা বা সিলভার রঙের ব্লাউজও কিন্তু বেশ মানানসই।

কালো শাড়ি

কালো শাড়ির সাথে গোল্ডেন, লাল, মেরুন ও সিলভার রঙের ব্লাউজ সেরা কালার কম্বিনেশনগুলোর একটি।

কালো শাড়ির সঙ্গে আরো বেশ কয়েকটি রং যেমন: বাদামী, স্কাই ব্লু, কালো, হালকা বা গাঢ় গোলাপী নির্দ্বিধায় বেছে নেওয়া যায়। এক্ষেত্রে একেক রং আপনার শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশনে এনে দেবে একেক লুক।

শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশনে নিজের রুচির ওপরও কিছুটা ভরসা রাখুন। মিলিয়ে দেখুন ব্লাউজের কোন ধরণ বা রঙটা আপনার সিলেক্ট করা শাড়ির সঙ্গে কতটা মানানসই হচ্ছে। এভাবে আপনি নিজেও বেশ কিছু শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশন তৈরি করতে পারেন।

প্রয়োজন মনে হলে পড়ে নিতে পারেন-

1 thought on “শাড়ি ব্লাউজ কম্বিনেশন : শাড়ির সঙ্গে মানানসই ব্লাউজ কালেকশন”

Comments are closed.