৩৫টি ফর্সা হওয়ার ফেসপ্যাক তৈরীর নিয়ম

দিন দিন ত্বকের উজ্জ্বলতা কমে আসছে? ত্বক আর গ্লো করছে না? তবে আপনার প্রয়োজন ত্বকের জন্য কিছু বাড়তি যত্নের। জেনে নিন ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় বা ফর্সা হওয়ার উপায় হিসেবে ঘরোয়া কিছু ফেসপ্যাক তৈরি ও ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্কে।

Table of Content Show

ফর্সা হওয়ার ফেসপ্যাক : ফর্সা হওয়ার উপায়

ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে কিছু ফেসপ্যাক তৈরি করে ব্যবহার করতে পারেন ঘরে বসেই। ঘরোয়া এই প্যাকগুলো কালচে ভাব দূর করে দ্রুত ত্বকের জৌলুস ফিরিয়ে আনবে।

হলুদ, ময়দা ও অলিভ অয়েলের ফেসপ্যাক

২ চামচ কাঁচা হলুদ বাটা ও ১ চামচ ময়দা খুব ভালো করে মিশিয়ে নিন। তার সাথে যোগ করুন আধা চামচ অলিভ অয়েল। মিশ্রণটি মুখ ও গলায় মেখে ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুবার ব্যবহারে আপনার ত্বকে ফর্সা ভাব দ্রুত ফিরে আসতে থাকবে।

বেসন ও দুধের ফেসপ্যাক

২ চামচ বেসন ও ২ চামচ দুধ একসঙ্গে মিশিয়ে একটি ঘন মিশ্রণ তৈরি করে ত্বকে ম্যাসাজ করুন। ২০-২৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে প্যাকটি সপ্তাহে একদিন করে ব্যবহার করতে পারেন।

🔥অবশ্যই পড়ুন: মুখের কালো দাগ দূর করার ঘরোয়া কিছু সহজ উপায় এবং সতর্কতা

বাদাম, হলুদ ও দুধের ফেস

সকালে উঠে আধা গ্লাস দুধে ৪-৫ টি বাদাম ও জাফরান ভিজিয়ে রাখুন। রাতে সে দুধে ২-৪ চামচ কাঁচা হলুদ বাটা মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। ত্বকে সারারাত লাগিয়ে রাখুন। এই প্যাকটি প্রতি দুই সপ্তাহে একবার করে ব্যবহার করতে হবে।

হলুদ ও নারিকেলের ফেসপ্যাক

৩৫টি ফর্সা হওয়ার ফেসপ্যাক তৈরীর নিয়ম

২ টেবিল চামচ কাঁচা হলুদ বাটার সাথে ১ চামচ বিশুদ্ধ নারিকেল তেল মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। মিশ্রণটি ত্বকে লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে একবার করে ব্যবহার করতে পারেন। শুষ্ক ত্বকের জন্য এটি ভালো কাজ করে। এছাড়া প্যাকটি ত্বকের বিভিন্ন সমস্যাও দূর করবে।

মধু ও নারিকেল তেলের ফেসপ্যাক

৩৫টি ফর্সা হওয়ার ফেসপ্যাক তৈরীর নিয়ম

সমপরিমাণ মধু ও নারিকেল তেল একসঙ্গে মিশিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করুন। ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে এটি সপ্তাহে একবার করে ব্যবহার করতে পারেন।

হলুদ ও চন্দনের ফেসপ্যাক

ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে হলুদ চন্দনের সুপরিচিতি সারা পৃথিবীতেই ছড়িয়ে আছে। হলুদ চন্দনের ফেসপ্যাক তৈরি করতে আধা চামচ কাঁচা হলুদ বাটা ও ১ চামচ চন্দন গুঁড়ো/বাটা একসাথে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। মিশ্রণটি ত্বকে লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে একবার করে ব্যবহার করতে পারেন।

কমলা ও হলুদের ফেসপ্যাক

৩৫টি ফর্সা হওয়ার ফেসপ্যাক তৈরীর নিয়ম

২ টেবিল চামচ কমলার রসের সঙ্গে সামান্য কাঁচা হলুদ বাটা যোগ করুন। মিশ্রণটি ত্বকে লাগিয়ে ১০-১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে প্যাকটি প্রতিরাতেই ব্যবহার করতে পারেন।

হলুদ, চন্দন, গোলাপজল ও দুধের ফেসপ্যাক

ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে ২ টেবিল চামচ চন্দন গুঁড়া/বাটা, ১ চামচ কাঁচা হলুদ বাটা, ৩-৪ ফোঁটা গোলাপজল ও ২ চা চামচ কাঁচা দুধ একসঙ্গে মিশিয়ে ত্বকে লাগান। ২০ মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে প্যাকটি সপ্তাহে তিনদিন করে ব্যবহার করতে পারেন।

কফি, নারিকেল অথবা গোলাপজল অথবা অলিভ অয়েলের ফেসপ্যাক

২ চামচ কফি পাউডারের সাথে ১ চামচ নারিকেল তেল বা অলিভ অয়েল মিশিয়ে ত্বকে স্ক্রাব করুন। কিছুক্ষণ পর ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুবার ব্যবহার ডেডসেল দূর করে ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে দারুণ কাজে দেয়।

টমেটো ও দুধের ফেসপ্যাক

একটি মাঝারি সাইজের পাকা টমেটো নিয়ে পেস্ট করে নিন। তাতে ২-৩ চামচ দুধ মিশিয়ে একটি ঘন মিশ্রণ তৈরি করে ত্বকে লাগান এবং সারারাত রেখে দিন। ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে এটি খুবই উপকারী।

৩৫টি ফর্সা হওয়ার ফেসপ্যাক তৈরীর নিয়ম

কোনোকিছু না মিশিয়ে শুধু টমেটো পেস্ট করে বা রস বের করেও ত্বকে ব্যবহার করা যেতে পারে। ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে এটিও দারুন কাজ করে।

এছাড়া আপনি টমেটোর সঙ্গে চন্দন গুঁড়ো ও হলুদ বাটা মিশিয়েও ফেসপ্যাক তৈরি করতে পারেন। ত্বকের উজ্জ্বলতা দ্রুত বাড়তে থাকবে।

টমেটো, লেবুর রস ও গোলাপজলের ফেসপ্যাক

মাঝারি সাইজের একটি পাকা টমেটো নিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। তাতে ১ চামচ লেবুর রস ও ৩-৪ ফোঁটা গোলাপজল খুব ভালোভাবে মিশিয়ে ত্বকে লাগান। ১৫-২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে প্যাকটি সপ্তাহে একবার ব্যবহার করতে পারেন।

কাঁচা দুধের ফেসপ্যাক

একটি বাটিতে কিছু পরিমাণ কাঁচা দুধ ঢালুন। তাতে তোয়ালে ভিজিয়ে মুখে ২-৩ মিনিট আলতো ভাবে ঘষতে থাকুন। এরপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে এটি সপ্তাহে দুদিন করে ব্যবহার করতে পারেন।

তাছাড়া কাঁচা দুধ টিস্যুতে ভিজিয়ে ত্বকের উপর রেখে দিতে পারেন। ৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিন ব্যবহারে ত্বকের উজ্জ্বলতা ফিরে আসবে।

আপনি চাইলে তুলার সাহায্যেও ম্যাসাজ করে নিতে পারেন। এছাড়া চাইলে তাতে ২ টেবিল চামচ যবের গুঁড়া ও ২ টেবিল চামচ বাদামি চিনি মেশাতে পারেন। তবে ত্বকে অ্যালার্জির সমস্যা থাকলে এগুলো মেশানোর প্রয়োজন নেই।

টকদই ও লেবুর রস ফেসপ্যাক

৩৫টি ফর্সা হওয়ার ফেসপ্যাক তৈরীর নিয়ম

৩-৪ চামচ টকদই এর সাথে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মেশান। মিশ্রণটি ভালো করে ফেনিয়ে একটি ঘন প্যাক তৈরি করুন। ত্বকে লাগিয়ে ৩০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এটি শুধু ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবেই নয় সেইসঙ্গে ত্বক নরম ও কোমল করতেও খুব ভালো কাজ করে।

লেবু, মধু, কাঠবাদাম ও দুধ দিয়ে ফেসপ্যাক ফেসপ্যাক

১ চা চামচ লেবুর রস, ১ চা চামচ মধু, ১ টেবিল চামচ গুঁড়ো দুধ ও আধা চা চামচ কাঠবাদামের তেল একসঙ্গে খুব ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি ত্বকে লাগান এবং ১৫-২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে এটি একদিন পর পর ব্যবহারে ভালো ফল পাওয়া যাবে।

দই ও মধু দিয়ে ফেসপ্যাক

১ টেবিল চামচ দই ও আধা চা চামচ মধু একসঙ্গে মিশিয়ে ত্বকে লাগান। ১০-১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সপ্তাহে দুবার করে ব্যবহার করতে পারেন।

৩৫টি ফর্সা হওয়ার ফেসপ্যাক তৈরীর নিয়ম

এছাড়া আপনি ত্বকে কোনকিছু মেশানো ছাড়াই শুধু দই বা শুধু মধু ব্যবহার করতে পারেন। ব্যবহারের ৪-৫ মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে ত্বক ধুয়ে পরিষ্কার করে ফেলুন। কয়েক সপ্তাহ প্রতিদিন ব্যবহারে ভালো ফল পাবেন।

কমলার খোসা ও দই দিয়ে ফেসপ্যাক

১ টেবিল চামচ শুকনো কমলার খোসা গুঁড়োর সাথে ১ টেবিল চামচ দই যোগ করুন। মিশ্রণটি ত্বকে লাগান এবং ১৫-২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুবার ব্যবহারে কালচে ভাব দূর হয়ে ত্বকের উজ্জ্বলতা ফিরে আসবে।

বেসন ও টকদই দিয়ে ফেসপ্যাক

২ চামচ বেসন ও ২ চামচ টকদই একসঙ্গে মিশিয়ে ত্বকে লাগান। ২০ মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে ত্বক ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সপ্তাহে একবার করে ব্যবহার করতে পারেন।

বেসন, লেবু, হলুদ ও গোলাপজল দিয়ে ফেসপ্যাক

৩ চামচ বেসন, ২ চামচ লেবুর রস, ১ চামচ কাঁচা হলুদ বাটা ও ২-৩ ফোঁটা গোলাপজল একসঙ্গে মিশিয়ে ত্বকে লাগান। মিশ্রণটি শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এবার হালকা গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে প্যাকটি সপ্তাহে দুবার করে ব্যবহার করতে পারেন।

বেসন, দই, হলুদ ও মধু দিয়ে ফেসপ্যাক

১ চামচ বেসন, ১ চামচ দই, আধা চামচ কাঁচা হলুদ বাটা ও ১ চামচ মধু একসঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে ত্বকে লাগান। ২০-২৫ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সপ্তাহে একদিন করে ব্যবহার করতে পারেন। এটি শুষ্ক ত্বকের জন্য খুবই ভালো একটি ফেসপ্যাক।

কোকো/কফি ও মধুর তৈরী ফেসপ্যাক

২ চামচ কোকো পাউডার অথবা কফি পাউডারের সাথে ১ চামচ মধু ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি ত্বকে ম্যাসাজ করুন। শুটিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে প্যাকটি সপ্তাহে একবার করে ব্যবহার করতে পারেন।

কফি, লেবু ও মধুর তৈরী ফেসপ্যাক

২ টেবিল চামচ কফি পাউডার, আধা চামচ লেবুর রস ও ১ চামচ মধু একসঙ্গে মিশিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করুন। ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে প্যাকটি সপ্তাহে একবার করে ব্যবহার করতে পারেন।

মধু ও লেবুর তৈরী ফেসপ্যাক

ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে ২ চামচ মধুর সঙ্গে ৩ ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়েও ব্যবহার করতে পারেন। এটি ত্বকের রং উজ্জ্বল করতে সাহায্য করবে। প্যাকটি সপ্তাহে একদিন করে ব্যবহার করতে পারেন।

৩৫টি ফর্সা হওয়ার ফেসপ্যাক তৈরীর নিয়ম

মধু দিয়ে আপনি স্ক্রাবারও তৈরি করতে পারেন খুব সহজে। ১ টেবিল চামচ মধুর সঙ্গে ১ চা চামচ চিনি মিশিয়ে ১০ মিনিট মুখে ম্যাসাজ করুন। এবার মুখ ধুয়ে ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। এটি ত্বকের মৃতকোষ দূর করে ত্বক উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে।

দারুচিনি ও মধু দিয়ে ফেসপ্যাক

১ চামচ দারুচিনি গুঁড়োর সঙ্গে ১ চামচ মধু মিশিয়ে ত্বকে লাগান। ১০-১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে একবার করে ব্যবহার করতে পারেন।

ডিম ও লেবু দিয়ে ফেসপ্যাক

৩৫টি ফর্সা হওয়ার ফেসপ্যাক তৈরীর নিয়ম

ব্ল্যাকহেডস্ এর জন্য ত্বক কালচে হয়ে ত্বকের উজ্জ্বলতা নষ্ট হয়। ব্ল্যাকহেডস্ দূর করতে ডিমের সাদা অংশের সাথে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে ত্বকে লাগান। ১৫-২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে প্যাকটি মাসে দুবার করে ব্যবহার করতে পারেন।

কলা ও মধু দিয়ে তৈরী ফেসপ্যাক

৩৫টি ফর্সা হওয়ার ফেসপ্যাক তৈরীর নিয়ম

মাঝারি সাইজের একটি পাকা কলার অর্ধেকটা পেস্ট করে নিন। তার সাথে মেশান ১ চামচ মধু। ত্বকে লাগিয়ে ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে প্যাকটি সপ্তাহে দুবার করে ব্যবহার করতে পারেন।

পেঁপে দিয়ে তৈরী ফেসপ্যাক

২-৩ টুকরো পাকা পেঁপে পেস্ট করে তার সাথে ১ চা চামচ মধু মেশান। ত্বকে লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে এটি সপ্তাহে দুবার করে ব্যবহার করতে পারেন।

প্রাকৃতিকভাবে গায়ের রং উজ্জ্বল করতে পেঁপে ও লেবুর তৈরি ফেসপ্যাক অনেক ভালো কাজে দেয়। ২-৩ টুকরো পাকা পেঁপে চটকে তার সাথে ১ চামচ লেবুর রস মেশান। মিশ্রণটি ত্বকে লাগিয়ে আধ ঘন্টা পর ধুয়ে ফেলুন।

এছাড়া আপনি কোনকিছু না মিশিয়ে শুধু পেঁপে পেস্ট করেও ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন। এটিও ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করবে।

কমলা, কলা ও পেঁপে দিয়ে তৈরী ফেসপ্যাক

৩৫টি ফর্সা হওয়ার ফেসপ্যাক তৈরীর নিয়ম

পরিমাণ মতো পেঁপে ও কলা চটকে পেস্ট তৈরি করুন। এর সাথে কয়েক চামচ কমলার রস মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি ত্বকে লাগান এবং ২০-৩০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে এটি সপ্তাহে দুদিন করে ব্যবহার করতে পারেন।

পুদিনা পাতা ও লেবু দিয়ে তৈরী ফেসপ্যাক

পরিমাণ মতো পুদিনা পাতা পেস্ট করে তাতে সামান্য লেবুর রস মেশান। তার সাথে যোগ করুন সামান্য কুসুম গরম পানি। প্যাকটি ত্বকে লাগিয়ে শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এবার কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে প্যাকটি সপ্তাহে একবার করে ব্যবহার করতে পারেন।

পেঁপের ফেসমাস্ক

৪-৫ টুকরো পাকা পেঁপে, ২ চামচ কোকো পাউডার, ২ চা চামচ ক্রীম, ২ চা চামচ ওটমিল গুঁড়ো ও ২ চামচ মধু একসঙ্গে খুব ভালোভাবে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে মুখে লাগান। ১৫-২০ মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি সব ধরনের ত্বকের জন্যই বেশ উপকারী। ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে প্যাকটি ১৫ দিন পর পর ব্যবহার করতে পারেন।

আম, আটা ও দুধ দিয়ে তৈরী ফেসমাস্ক

১ টেবিল চামচ আমের শাস, ১ টেবিল চামচ আটা ও ১ চা চামচ দুধ একসঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে ত্বকে ম্যাসাজ করুন। ২০ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে প্যাকটি সপ্তাহে দুবার করে ব্যবহার করতে পারেন।

আম, আটা ও মধু দিয়ে তৈরী ফেসমাস্ক

৩ চামচ সুগন্ধি চালের আটা, ২ চামচ দুধ ও ১ চামচ মধু একসঙ্গে মিশিয়ে মিশ্রণটি ত্বকে লাগান। ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে প্যাকটি সপ্তাহে দুবার করে ব্যবহার করতে পারেন।

দুধ, আটা ও ময়দা দিয়ে তৈরী ফেসমাস্ক

২ চামচ আটা, ২ চামচ ময়দা ও ৩ চামচ কাঁচা দুধ একসঙ্গে মিশিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করুন। তৈলাক্ত ত্বক হলে তাতে যোগ করুন আধ চামচ মধু। ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে এটি সপ্তাহে একবার করে ব্যবহার করতে পারেন।

আলু ও মধু দিয়ে তৈরী ফেসমাস্ক

একটি মাঝারি সাইজের আলু সিদ্ধ করে চটকে নিন। তাতে ২ চামচ মধু মিশিয়ে মিশ্রণটি ত্বকে লাগিয়ে রাখুন। ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুদিন করে প্যাকটি ব্যবহার করতে পারেন। ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে এটি সব ধরণের ত্বকের জন্যই উপযুক্ত।

৩৫টি ফর্সা হওয়ার ফেসপ্যাক তৈরীর নিয়ম

এছাড়া ত্বকে শুধু আলুর রস মেখে সারারাত রেখে দিলেও ভালো ফল পাওয়া যাবে। এটি প্রতিরাতেই ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন।

খেঁজুরের ফেসমাস্ক

৩-৪ টি পাকা খেজুর বিচি ছাড়িয়ে সারারাত ৪-৫ চামচ দুধে ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন ব্লেন্ড করে পেস্ট তৈরি করে মুখে লাগান। ৩০ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

এছাড়া আপনি ২-৩ টি পাকা খেজুর, ১ চামচ চন্দন গুঁড়ো, ১ চামচ হলুদ বাটা ও ২ চামচ দুধ একসঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে ত্বকে লাগাতে পারেন। ২৫-৩০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ানোর পাশাপাশি এটি ত্বকের নমনীয়তা বাড়াতেও সাহায্য করবে।

ফর্সা হওয়ার বিশেষ ফেসমাস্ক

৩ চামচ পেঁপের রস, ২ চামচ দই, ৪ চামচ অ্যাপেল সিডার ভিনেগার, ৩ চামচ আমন্ড অয়েল, ১ চামচ গ্লিসারিন ও একটি ডিমের সাদা অংশ নিন। গ্লিসারিন ও ডিম বাদ দিয়ে বাকি উপাদানগুলো একসাথে মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করে ফ্রিজে রাখুন। ২ ঘন্টা পর ফ্রিজ থেকে বের করে তার সঙ্গে ডিম ও ভিনেগার খুব ভালো করে মেশান।

মিশ্রণটি ত্বকে মেখে নিন। ২০-২৫ মিনিট পর হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ফেসপ্যাকটি সপ্তাহে একবার ব্যবহারে ত্বকের রং হালকা হয়ে দ্রুত ফর্সা ভাব ফুটে উঠবে।

ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসেবে উপরোক্ত সবগুলো প্যাকই অনেক কার্যকরী। আপনি আপনার সুবিধা ও পছন্দমত যেকোনটি ব্যবহার করতে পারেন। সেইসাথে নিয়মিত ত্বকের যত্ন নিতে ভুলবেন না যেন।

ত্বকের যত্নে সাধারণ কিছু নিয়ম :

১.

দিনে অন্তত ৬-৮ গ্লাস পানি পান করুন।

২.

দুপুরের কড়া রোদ এড়িয়ে চলুন। বাইরে বের হওয়ার সময় ত্বকে সানস্ক্রিন লাগিয়ে নিন।

৩.

নিয়মিত ত্বক পরিষ্কার করুন। ডেইলি স্কিন কেয়ার রুটিন মেইনটেইনে আলসেমি করবেন না।

৪.

সপ্তাহে অন্তত একবার ঘরোয়া মাস্ক, স্ক্রাবার বা ফেসপ্যাক ব্যবহার করুন।

৫.

বেশি বেশি সবুজ শাক-সবজি ও ফল খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

৬.

২৪ ঘন্টায় অন্তত ৭-৮ ঘন্টা সময় ঘুমে ব্যয় করুন। সেইসাথে রাতজাগার অভ্যাস ত্যাগ করুন।

৭.

নিয়মিত গ্ৰিন টি পানের অভ্যাস গড়ে করুন।

Share On:
লাবনী আক্তার সেতু

একজন সম্ভাবনাময়ী মানুষ। নতুন বিষয় জানতে ভালোবাসেন। স্বপ্ন একদিন অকৃত্রিম ভালোবাসা দিয়ে জগত জয় করার। ↗️

Leave a Comment